পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে করণীয় কি

পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে করণীয় কি? (দেশে ও বিদেশে)

পাসপোর্ট আমাদের দৈনন্দিন জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট। বিশেষ করে প্রবাসী এবং ভ্রমণ প্রেমীদের জন্য। এই মূল্যবান ডকুমেন্টটি যে কোনো সময় অনাকাঙ্খিত ভাবে হারিয়ে যেতে পারে অথবা চুরি হতে পারে। পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে করণীয় কি তা আপনাকে জেনে রাখা উচিত।

পাসপোর্ট হলো বিদেশ ভ্রমণের অপরিহার্য ডকুমেন্ট বা একমাত্র পরিচয়পত্র। এই ডকুমেন্টটি ছাড়া বিদেশে যাওয়া যায় না। আবার বিদেশে যাওয়ার পরও যদি পাসপোর্ট হারিয়ে যায়, তবুও আপনাকে পাসপোর্ট সংগ্রহ করতেই হবে।

প্রবাসীদের জন্য পাসপোর্ট অক্সিজেনের মতো। বিদেশে পাসপোর্ট হারিয়ে যাওয়ার পর পুলিশের কাছে ধরা খেলে সরাসরি জেল, জরিমানা হওয়ার পর দেশে ফেরত পাঠানো হয়।

তাই অনেক প্রবাসী রেমিট্যান্স যোদ্ধাদের প্রশ্ন বিদেশে পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে কি করব? আবার দেশের ভেতরে থাকা অনেক মানুষ বলেন আমার পাসপোর্ট হারিয়ে গেছে।

দেশের ভেতরে অথবা দেশের বাইরে যে কোনো ভাবে আপনার পাসপোর্টটি হারিয়ে যাক অথবা চুরি হয়ে যাকনা কেন, আজ আমি আপনাকে বলে দেবো পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে কি করতে হবে।

দেশে পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে করণীয়

দেশের ভেতরে পাসপোর্ট হারালে খুব বেশি জটিলতার সম্মুখীন হতে হয় না। মাত্র কয়েকটি প্রসেস ফলো করেই হারানো পাসপোর্টকে রিইস্যু করা যায়।

তবে পাসপোর্টকে রিইস্যু করার জন্য আপনার কাছে পাসপোর্ট সম্পর্কিত কিছু তথ্য থাকতে হবে। তাহলে খুব সহজেই রিইস্যু করতে পারবেন।

আর যদি আপনার কাছে হারিয়ে যাওয়া পাসপোর্টের কোনো তথ্যই সংরক্ষিত না থাকে, তবে পাসপোর্ট রিইস্যু করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন ঝামেলা পোহাতে হবে।

যাইহোক, আপনার পাসপোর্ট যদি দেশের ভেতরেই হারিয়ে যায় তবে করণীয় হিসেবে যা যা করবেন, তা নিচে তুলে ধরা হলো। –

১, থানায় জিডি করতে হবে

পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে, পুড়ে গেলে অথবা চুরি হয়ে গেলে প্রথমেই আপনার নিকটস্থ থানায় সাধারণ ডায়েরি বা জিডি করতে হবে।

আপনার কাছে যদি পাসপোর্টের ফটোকপি বা মোবাইলে তোলা কোনো ছবি থাকে, তবে সহজেই জিডি করতে পারবেন।

আর যদি ফটোকপি বা ছবি কিছুই না থাকে, তবে জিডি করার ক্ষেত্রে অন্তত পাসপোর্টের নম্বর প্রয়োজন হবে।

যাদের কাছে পাসপোর্টের কোনো ইনফরমেশন নেই, তাদের ক্ষেত্রে জিডি করার ব্যপারটি অনেকটা কঠিন ।

যাইহোক, পাসপোর্ট হারালে প্রাথমিক করণীয় হলো নিকটস্থ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা।

২, পাসপোর্ট রিইস্যুর জন্য আবেদন করতে হবে

থানায় জিডি করার পর হারানো পাসপোর্ট এর সকল ইনফরমেশন ঠিক রেখে রিইস্যুর জন্য পাসপোর্ট অধিদপ্তরে আবেদন করতে হবে।

আবেদন করার ক্ষেত্রে পাসপোর্ট রি ইস্যু ফরমটি সঠিক ভাবে পূরণ করতে হবে। কোনো প্রকার ভুল করা যাবে না।

এখন ই-পাসপোর্ট এর যুগ। অফলাইনের পাশাপশি অনলাইনেও পাসপোর্ট রিইস্যুর জন্য আবেদন করা যায়।

আবেদন করতে যা যা লাগবে-

আবেদনপত্রের সঙ্গে জিডির মূল কপি, পাসপোর্টধারীর সদ্য তোলা ছবি, ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি জমা দিতে হবে।

আর আপনার কাছে যদি পাসপোর্টের ফটোকপি থাকে, তবে সেটাও জমা দেবেন। আর যদি না থাকে তবে এতে সমস্যা হবে না।

আর হ্যা, পাসপোর্ট রিইস্যুর আবেদনের জন্য আপনাকে পাসপোর্টের পুরো ফি গুণতে হবে!

৩, পাসপোর্ট লস সার্কুলার সার্টিফিকেট সংগ্রহ করতে হবে

হারানো পাসপোর্টের জন্য আবেদন করার পর পাসপোর্ট অধিদপ্তর একটি সার্কুলার বা সতর্ক বার্তা জারি করবে। যে সার্কুলারটি দেশের প্রত্যেকটি বিমান বন্দর ও কোর্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

যেনো অন্য কেউ আপনার পাসপোর্ট ব্যবহার করে বিদেশে না যেতে পারে।

সার্কুলার জারি করার আরও একটি উদ্দেশ্য হলো কেউ যদি আপনার পাসপোর্টটি কুড়িয়ে পায় এবং সে যদি কোনো থানায়, ইউনিয়ন পরিষদ অথবা সরকারি কোনো অফিসে জমা দেয়, তবে খুব সহজেই পাসপোর্ট অধিদপ্তর এই বিষয়টি জানতে পারবে।

তারপর কর্তৃপক্ষ আপনাকে পাসপোর্ট ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করবে। যদি আপনার ফোন নম্বর দেওয়া থাকে, তবে আপনাকে ফোনে জানিয়ে দেওয়া হবে বা অন্য কোনো পদ্ধতিতে আপনার পাসপোর্টটি ফেরত পোবেন।

আপনি অবশ্যই পাসপোর্ট রিইস্যুর আবেদন করার পর ’পাসপোর্ট লস সার্কুলার সার্টিফিকেটটি’ পাসপোর্ট অধিদপ্তর থেকে সংগ্রহ করে নেবেন।

বিদেশে পাসপোর্ট হারালে করণীয়

অনেক প্রবাসী ভাই-বোন আছেন, যারা বিদেশে থাকা অবস্থায় পাসপোর্ট হারিয়ে ফেলেন। এমতাবস্থায় অনেক ভাই-বোনেরাই জিজ্ঞাসা করেন বিদেশে পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে কি করব?

বিদেশে পাসপোর্ট হারালেও বেশ কয়েকটি স্টেপ ফলো করে পাসপোর্ট রিইস্যুর জন্য আবেদন করতে হবে। পুরো প্রসেটা যেভাবে সম্পূর্ণ করতে হবে –

, থানায় জিডি করতে হবে

বিদেশে পাসপোর্ট হারালেও নিকটস্থ থানায় জিডি করতে হবে।

জিডিতে পাসপোর্ট হারানোর বিষয়টি সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করে দিতে হবে।

২, বাংলাদেশ দূতাবাসে যেতে হবে

আপনি যেদেশে ভ্রমণ করতে গিয়ে পাসপোর্ট হারিয়েছেন, সেদেশে থাকা বাংলাদেশ দূতাবাস অথবা কনস্যুলেট অফিসে স্বশরীরে উপস্থিত হতে হবে এবং তাদের সাথে পাসপোর্ট হারানোর বিষয়টি বলতে হবে।

সাথে অবশ্যই থানার জিডি কপি, পাসপোর্টের ফটোকপি এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো নিয়ে যাবেন। তাহলে তারাই আপনার পাসপোর্ট এর রিইস্যুর আবেদনপত্রটি পাসপোর্ট অধিদপ্তরে সাবমিট করে দেবেন।

৩, ট্রাভেল পারমিট সংগ্রহ করতে হবে

দূতাবাস অথবা কনস্যুলেট অফিসে তথ্যগুলো জমা দেওয়ার পর তারা আপনাকে সাময়িক ভাবে চলার জন্য একটি ‘ট্রাভেল পারমিট’ দেবেন। পাসপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত সেটি দিয়ে আপনি কাজ চালিয়ে যেতে পারবেন।

ট্রাভেল পারমিট পেতে যে যে কাগজপত্র গুলো সাথে নিয়ে যেতে হবে তা হলোঃ-

  • থানায় করা জিডির মূল কপি,
  • হারানো পাসপোর্টের ফটোকপি,
  • পাসপোর্টের ভিসা এরাইভাল হওয়ার কপি,
  • নিজের সদ্য তোলা কয়েক কপি ছবি
  • যে দেশে থাকছেন, সেখানকার ঠিকানা বা তার প্রমাণপত্র ইত্যাদি।

উপরোক্ত তথ্য গুলো দেওয়ার পর সেদিনই আপনাকে একটি ট্রাভেল পারমিট প্রদান করা হবে। অথবা ২/৩ দিনের ভেতেরই ট্রাভেল পারমিটটি আপনি পেয়ে যাবেন।

গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথাঃ

প্রিয় পাঠক, দেশ-বিদেশে ভ্রমণ বা প্রবাসীদের জন্য পাসপোর্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট। এটি হারিয়ে গেলে প্রথমেই নিকটস্থ থানায় জিডি করবেন। তাহলে নানান সমস্যা এড়ানো যাবে।

পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে করণীয় কি তা আপনাদের আমি বলেছি। আপনার পাসপোর্ট যদি কখনও হারিয়ে যায় বা চুরি হয়ে যায় অথবা পুড়ে যায়, কিংবা যে কোনো ভাবেই নষ্ট হয়ে যায় না কেন, আপনি উপরোক্ত প্রসেস ফলো করে দেশে-বিদেশে যে কোনো স্থান থেকেই পাসপোর্ট রিইস্যু করতে পারবেন।

এই বিষয়ে যদি কোনো আইনি প্রশ্ন থাকে তবে সরাসরি বাংলাদেশের ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরে যোগাযোগ করুন। আর আপনার যে কোনো প্রশ্নই আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। যথাসাধ্য উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

Add comment